ঘরে ১০ মিনিট তেজপাতা পো’ড়ালেই মিলবে বি’স্ময়কর উপকারিতা!

রান্নায় তেজপাতার জাদু স’স্প'র্কে নিশ্চয়ই জা’নেন। খাবারে খুব সুন্দর একটি ঘ্রান এনে দেয় এই তেজপাতা। তাছা'ড়া দে’হের বিভিন্ন রো’গ প্র’তিরো’ধেও তেজপাতা খুবই উপকারী।

জা’নেন কি শুধু খেলেই নয়, ঘ'রে এই পাতা পো'ড়ালেও মি’লবে বিস্ময়কর উপকারিতা! কি, বি'শ্বা’স হচ্ছে না? তবে আজ নিজেই ঘ'রে বসে তেজপাতা পুড়িয়ে করে ফেলুন ছোট্ট একটি প'রীক্ষা। আর ফলাফল দে'খে নিন আ'পনার চোখের সামনেই।

আয়ুর্বেদ জা’নাচ্ছে, কেবল তেজপাতা খাওয়াতেই নয়, পো'ড়ালেও অনেক উপকার পাওয়া যায়। একটি হেলথ ওয়েবসাইট ‘হেলদি ফুড ট্রিকস’-এ স’ম্প্র'তি প্র’কাশিত হয়েছে তেজপাতা বি'ষয়ক এই তথ্য।

সেখানে বলা হয়েছে, একটি ছাইদানিতে কয়েকটি তেজপাতা নিয়ে ১০ মিনিট ধ’রে পোড়ান। এতে পাতা যেমন পুড়বে, তেমনই পুড়বে এর মধ্যে থাকা অ’প'রিহার্য তৈল উপাদানও।

তেজপাতা পোড়ালে ধীরে ধীরে ঘ'রে সুগন্ধ ছড়িয়ে পড়ে। এই ভেষজ গন্ধ মনকে সতেজ করে দেবে। এটি মন-শ’রীরকে যেমন প্রশমিত ক’রতে সাহায্য করে, তেমনই এতে মা’নসিক চা’প ও উদ্বেগও কমবে।

ইউরোপীয় বিভিন্ন শাস্ত্রে বলা হয়েছে, প্রাচীন গ্রিক ও রোমা'নরা তেজপাতাকে পবি'ত্র ওষুধ বলত। বিভিন্ন স’মস্যার স'মাধানে তেজপাতাকে অ’প'রিহার্য ব'লে ধ’রা হয়। উপমহাদেশে এই পাতাকে মসলা হিসেবে ব্যবহার করেন।

রান্নার স্বাদ বাড়াতে ও সুগন্ধ আনতে এর ব্যবহার করা হয়। বি'জ্ঞানীরা জা’নাচ্ছেন, তেজপাতার মধ্যে রয়েছে পিনেনে ও সাই’নিয়ল নামে দু’টি উপাদান। রয়েছে তৈল উপাদান। এর মধ্যে রয়েছে সাইকো-অ্যাকটিভ প'দার্থ।

পাশাপাশি, এতে রয়েছে জীবানুনাশক, ডিওরেটিক, সিডেটিভ ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান। এগুলো স্বা’স্থ্যের জ'ন্য উপকারী। এটি মন-মেজাজকে ভা'লো করে, স’ঙ্গে তেজপাতা পাকস্থলীর ফ্লু নিরাময়েও সাহায্য করে। তেজপাতার এসেনশিয়াল অয়েল দিয়ে ম্যাসাজ করলে মাথাব্য’থা কমে।