বাজারে পিয়াজের দাম বাড়লো কেজিতে ১০ টাকা

রা'জধানীর পাইকারি বাজারে পিয়াজের দাম কেজিতে অ’ন্তত ১০ টাকা বেড়েছে। এক সপ্তাহ আ'গে যে পিয়াজ ৩০ টাকা কেজিতে বিক্রি হতো তা এখন বেড়ে হয়েছে ৪০ টাকা। বাজারে এই নিত্যপ্রয়োজ'নীয় প'ণ্যটির সরবরাহ কিছুটা কমায় দামের উপ'র তার প্র'ভাব পড়েছে ব'লে জানিয়েছেন ঢাকার খুচ’রা বিক্রেতারা। কারওয়ানবাজারের পাইকারি দোকানগুলোতে এক পাল্লা (৫ কেজি) পিয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৭০ টাকায়, যা এক সপ্তাহ আ'গে বিক্রি হচ্ছিল ১৩০ টাকায়।

এদিকে ধা'রাবা'হিকভাবে মূল্যবৃ’দ্ধির প্র'ভাবে কিছুটা এলোমেলো হয়ে গেছে ভোজ্য তেলের বাজার। প্র'তি লিটার কোথাও ১১৮ টাকা, কোথাও ১২৬ টাকা আবার কোথাও ১৩২ টাকা দাম লেখা রয়েছে সয়াবিন তেলের বোতলের গায়ে। খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে প্র'তি লিটার ১৩০ টাকায়।

কোভিড-১৯ শুরুর আ'গে দীর্ঘ দেড় বছরে ধ'রে তুরস্কের মোটা দানার মসুর ডাল প্র'তিকেজি ৫০ টাকা থেকে ৫৫ টাকার মধ্যে বিক্রি হচ্ছিল। মহামা’রীতে দাম কিছুটা বেড়ে গেলেও তা আবার আ'গের অবস্থায় ফিরে এসেছিল। কিন্তু এক সপ্তাহ ধ'রে তুরস্কের মসুর ডালের দাম কেজিতে ৫-৭ টাকা করে বেড়েছে ব'লে বিক্রেতাদের দা'বি।

চালের দামও কিছুটা বেড়েছে ব'লে বিক্রেতারা দা'বি করছেন।প্র'তিকেজি মিনিকেট ৬২ টাকা, বিআর আটাশ ৫২ টাকা স্বর্ণা ৪৬ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। প্রা'য় স’ব ধরনের চালের দাম বস্তায় ৫০/১০০ টাকা করে বেড়েছে গত এক সপ্তাহে। আ'গের সপ্তাহে কারওয়ান বাজারে মিনিকেট ৬০ টাকা, নাজির ৬২ টাকা, বিআরআটাশ ৪৬ টাকা, পাইজাম ৪৫ টাকা, স্বর্ণা ৪০ টাকা, জিরা শাইল ৫২ টাকায় প্র'তিকেজি বিক্রি হচ্ছিল।