একনজরে আল্লামা শাহ আহমদ শফী

শাহ আহম’দ শফী – আল্লামা শাহ আহম’দ শফী একজন ইস’লামি ব্যক্তিত্ব, হেফাজতে ইস’লাম বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা ও দায়িত্বপ্রাপ্ত আমির। তিনি একইসঙ্গে বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের চেয়ারম্যান। তিনি দারুল উলুম মুঈনুল ইস’লামের হাটহাজারীর মহাপরিচালক ছিলেন।

শাহ আহম’দ শফী চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া থা’নার পাখিয়ারটিলা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি আল-জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মুঈনুল ইস’লাম ও ভা’রতের দারুল উলুম দেওবন্দ মাদরাসায় শিক্ষালাভ করেন। শফী আল-জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মুঈনুল ইস’লামে শিক্ষকতার মাধ্যমে কর্মজীবন শুরু করেন। ২০১০ সালে হেফাজতে ইস’লাম নামে একটি ধ’র্মীয় সংগঠন প্রতিষ্ঠা করেন।

ছাত্র বি’ক্ষোভের মুখে অব’রুদ্ধ অবস্থায় অ’সুস্থ হয়ে পড়েন আল্লামা শাহ আহম’দ শফী। মাদ্রাসার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নেয়ার পর বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে চট্টগ্রাম হাসপাতা’লে নেয়া হয়।

শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চ’মেক) হাসপাতা’লের আইসিইউতে থাকা আল্লামা শফীকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে শুক্রবার সন্ধ্যার আগে ঢাকায় এনে আজগর আলী হাসপাতা’লে ভর্তি করা হয়।

চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানেই তিনি মৃ’ত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।

প্রায় শতবর্ষী আল্লামা আহম’দ শফী দীর্ঘদিন যাবৎ তিনি বার্ধক্যজনিত দুর্বলতার পাশাপাশি ডায়াবেটিস, উচ্চ র’ক্তচাপ ও শ্বা’সক’ষ্টে ভুগছিলেন।

৩০ বছরের বেশি মাদ্রাসার দায়িত্বে ছিলেন আল্লামা শফী

৩০ বছরের বেশি সময় ধরে চট্টগ্রামের আল-জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলূম মুঈনুল ইস’লাম হাটহাজারী মাদ্রাসার মুহতামিম (মহাপরিচালক) পদ থাকা দেশের প্রবীণ কওমি আলেম আল্লামা শাহ আহম’দ শফি।

গত বৃহস্পতিবার তিনি সেচ্ছায় পদত্যাগের পরে হাটহাজারী মাদ্রাসার পরিচালনা পর্ষদ (মজলিসে শুরা কমিটি) তাকে মহাপরিচালক পদ থেকে অব্যাহতি দিয়ে মাদ্রাসার উপদেষ্টা (সদরে মুহতামিম) হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন।

ওই দিনই ছাত্র বি’ক্ষোভের মুখে অব’রুদ্ধ অবস্থায় অ’সুস্থ হয়ে পড়েন আল্লামা শাহ আহম’দ শফী। মাদ্রাসার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নেয়ার পর বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে চট্টগ্রাম হাসপাতা’লে নেয়া হয়।

শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চ’মেক) হাসপাতা’লের আইসিইউতে থাকা আল্লামা শফীকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে শুক্রবার সন্ধ্যার আগে ঢাকায় এনে আজগর আলী হাসপাতা’লে ভর্তি করা হয়।

চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানেই তিনি মৃ’ত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।

প্রায় শতবর্ষী আল্লামা আহম’দ শফী দীর্ঘদিন যাবৎ তিনি বার্ধক্যজনিত দুর্বলতার পাশাপাশি ডায়াবেটিস, উচ্চ র’ক্তচাপ ও শ্বা’সক’ষ্টে ভুগছিলেন।