প্রশাসনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে লক্ষ্মীপুরে চলছে অবাদে কোচিং ক্লাস

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে দেশে সব ধরণের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে সরকার। সে নির্দেশ উপেক্ষা করে লক্ষ্মীপুরে এখনও চলছে কোচিং সেন্টার। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত খ্যাতনামা স্কুল-কলেজের শিক্ষকরা চালিয়ে যাচ্ছেন বাণিজ্যিক এই কার্যক্রম।শনিবার (২১ মার্চ) সকালে লক্ষ্মীপুর সরকারি মহিলা কলেজ, লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজ ও হাউজিং রোড এলাকা সহ জেলার কয়েকটি স্থানে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন কোচিং সেন্টারে কোচিং করতে যাচ্ছেন।

ছোট্ট একটি কক্ষে গাদা-গাদি করে অনেকেই বসে রয়েছেন। আবার কেউ কোচিং শেষে বাসায় ফিরছেন।বিপ্লব কোচিং সেন্টারের মালিক ও লক্ষ্মীপুর কমার্স কলেজের শিক্ষক পরিচয়দানকারী মো. বিপ্লব বলেন, সরকারি নির্দেশনা পাওয়ার পরই সেন্টারটি বন্ধ করে দিয়েছি। আজ ভুলে শিক্ষার্থীরা চলে আসায় বাড়ির কাজ দেখিয়ে দিচ্ছেন, কোচিং করাচ্ছেন না।

শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা বলেন, সরকারি নির্দেশনা থাকা সত্ত্বেও শিক্ষরা কোচিং সেন্টার খোলা রেখেছে। এজন্য প্রতিদিনই কোচিংয়ে যেতে হচ্ছে শিক্ষার্থীদের। তবে কয়েকজন একসঙ্গে পড়ালেখা করা ঝুঁকিপূর্ণ বলে তারাও মনে করেন। আগামী কাল থেকে সন্তানকে কোচিংয়ে পাঠাবেন না বলে জানান তারা। করোনা থেকে রক্ষা পেতে বাণিজ্যিক এই প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধের জন্য প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেন অভিভাবকগণ।

কোচিং সেন্টারগুলো বন্ধ করা জেলা শিক্ষা অফিসের দায়িত্ব, এজন্য এ বিষয়ে কোন মন্তব্য করেননি জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পাল।লক্ষ্মীপুর জেলা শিক্ষা অফিসের সহকারী পরিদর্শক মো. ইব্রাহীম খলিল বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষকদের শিক্ষা কার্যক্রম ও কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। সে আদেশ কেউ অমান্য করলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি। কোন শিক্ষক ও সেন্টারের বিরুদ্ধে অভিযোগ পেলে তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান এই কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন=টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে পথচারীকে বাঁচাতে গিয়ে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় ভাইস চেয়ারম্যানের ছোট ভাই মো. আরিফ (২৫) নিহত হয়েছে।শনিবার (২১ মার্চ) দুপুরে ভুঞাপুর-বঙ্গবন্ধু সেতুপুর্ব সড়কের উপজেলার চিতুলিয়াপাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে
নিহত আরিফ ভুঞাপুর পৌরসভার ছাব্বিশা গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম বাবুর ছোট ভাই।

ভূঞাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ রাশিদুল ইসলাম জানান, নিহত আরিফ মাটিকাটা থেকে মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি ফিরছিলেন। এসময় ভূঞাপুর-বঙ্গবন্ধু সেতুপুর্ব সড়কের উপজেলার চিতুলিয়াপাড়া এলাকায় একজন পথচারীকে বাঁচাতে গিয়ে মোটরসাইকেলটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে একটি গাছে ধাক্কা লাগে।এতে সে গুরুত্বর আহত হয়। পরে উদ্ধার করে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

About uzzal

Check Also

দেশের করোনায় মৃত দ্বিতীয় ব্যক্তি সম্পর্কে যা জানা গেল

দেশের দ্বিতীয় যে ব্যক্তিটি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ‍মারা গেছেন, তিনি সরকারি কলেজের একজন অবসরপ্রাপ্ত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *